৮৫ কোটি টাকা নিয়ে তোলপাড় স্বাস্থ্য খাত

সংবাদদাতা
সংবাদদাতা
প্রকাশিত: 0৬:১৬, অক্টোবর ২৪ ২0১৮ |
Print
ফাইল ছবি

জীবনকন্ঠ ডেস্ক । কাশফিঃ   স্বাস্থ্য খাতে ৮৫ কোটি টাকার বরাদ্দ নিয়ে তোলপাড় চলছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি সিন্ডিকেট ঠিকাদারের সঙ্গে মিলে সরকারি পাঁচ হাসপাতালের নামে এই টাকা লোপাটের সব আয়োজন সম্পন্ন করে ফেলেছিল। কিন্তু স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের হস্তক্ষেপে শেষ মুহূর্তে সিন্ডিকেটটির এই অপতৎপরতা ভেস্তে যায়। জড়িত থাকার অভিযোগে এক উপসচিবকে ইতিমধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বরাদ্দের ৮৫ কোটি টাকা লোপাটের জন্য পছন্দের ঠিকাদারকে কাজ পাইয়েদিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়ে এক খাতের টাকা অন্য খাতে স্থানান্তর করার অনুমোদনও বাগিয়ে নেয় এ সিন্ডিকেট। যদিও যেসব হাসপাতালে অর্থ বরাদ্দের জন্য ফাইল পাঠানো হয়েছিল, সেগুলোর সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষও এ সম্পর্কে কিছুই জানত না।

চলতি অর্থবছরের ৩০ জুলাই স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ থেকে পাঁচটি সরকারি হাসপাতালের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ পুনঃউপযোজনের প্রস্তাব করে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়। উপসচিব রেহানা ইয়াসমিন ওই চিঠিতে স্বাক্ষর করেন। চলতি বছরের ১৪ আগস্ট অর্থ মন্ত্রণালয় এ প্রস্তাবে সম্মতি দেয়। সংশ্নিষ্ট পাঁচটি সরকারি হাসপাতালের মধ্যে রয়েছে- রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, দিনাজপুরের এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, পাঁচশ' শয্যা বিশিষ্ট মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, আড়াইশ' শয্যার গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল এবং আড়াইশ' শয্যার মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল।

এর মধ্যে রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চিকিৎসা ও শল্যচিকিৎসা সরঞ্জামাদি সরবরাহ খাতে ৩২৫২১০৫ কোডে ৩৪ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। সেখান থেকে সচিবালয় ৪১১২৩১৫ নম্বর কোডে ২০ কোটি টাকা পুনঃউপযোজন করে একই প্রতিষ্ঠানে বরাদ্দ দেওয়া হয়। চলতি অর্থবছরে সচিবালয় ৪১১২৩১৫ নম্বর কোডে চিকিৎসা যন্ত্রপাতি খাতে ৩৮০ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। এই বরাদ্দ থেকে এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ১৫ কোটি টাকা, মুগদা ৫০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে ২০ কোটি টাকা এবং ২৫০ শয্যার গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ২০ কোটি টাকা পুনঃউপযোজন করা হয়েছে। এ ছাড়া কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের ৩২৫২১০৫ নম্বর কোডে চিকিৎসা ও শল্যচিকিৎসা সরঞ্জামাদি সরবরাহ খাতে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। এই বরাদ্দ থেকে টাকা কেটে সচিবালয় ৪১১২৩১৫ নম্বর কোডে ১০ কোটি টাকা নেওয়া হয়েছে। এ টাকা ২৫০ শয্যার মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পুনঃউপযোজন করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে অন্ধকারে রেখে মন্ত্রণালয়ের একটি চক্র এ ঘটনাঘটায়। বিষয়টি জানার পর তিনি এই বরাদ্দ প্রত্যাহারের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেন। মন্ত্রণালয় চলতি বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর আরেকটি চিঠি দিয়ে ওই অর্থ প্রত্যাহার করে নেয়। অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. আবদুস সামাদ স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, প্রশাসনিক প্রয়োজনে অর্থ বিভাগের আগের সম্মতি নির্দেশক্রমে প্রত্যাহার করা হলো। উল্লেখিত পুনঃউপযোজনকৃত টাকা থেকে কোনো বিল দাবি করা যাবে না এবং এ বাবদ কোনো বিল পরিশোধ করা যাবে না। এ আদেশের অনুলিপি স্বাস্থ্য মন্ত্রীসহ সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তাদের দেওয়া হয়েছে।

জীবনকন্ঠ/কাশফি

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - janoterkontho@gmail.com or মতিঝিল অফিসঃ খান ম্যানশন, ১০৭ মতিঝিল, ঢাকা-১০০০

আপনার মতামত লিখুন :